মঙ্গলবার, ০৫ Jul ২০২২, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

সিলেটে ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে আসামি মিলাদ

সিলেটে ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে আসামি মিলাদ

sylhetlive24.com/সিলেট লাইভ
ধর্ষক মিলাদ আহমদ


বিশেষ প্রতিবেদক

সিলেটে এক ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ ও অন্তসত্ত্বা করে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে মিলাদ নামের এক নরপশু। ২ আগস্ট এসএমপির জালালাবাদ থানায় মিলাদকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা নং-০৩(৮)২১ করা হয়েছে। নরপশুটি দিব্যি ঘুরে বেড়ালেও অজ্ঞাত কারণে তাকে গ্রেফতার করছে না পুলিশ। মামলার পর এলাকার প্রভাবশালীদের শেল্টারে থাকা ধর্ষক মিলাদ গ্রেফতার এড়িয়ে বাদী ও ভিকটিমকে অপহরণ হত্যা ও গুম করার প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীর মা। ঘটনাটি ঘটেছে সিলেট শহরতলীর জালালাবাদ থানাধীন আখালিয়া নতুন বাজারে। ধর্ষক মিলাদ আহমদ আখালিয়া দামালী পাড়ার তুলা মিয়ার ছেলে ও আখালিয়া নতুনবাজারস্থ মিলাদ লাইটিং এন্ড সাজঘর এর মালিক।

এসএমপি’র জালালাবাদ থানায় দায়ের করা মামলা সূত্রে জানা যায়- জালালাবাদ থানার চামাউরা কান্দি শান্তিপুরের এক বিধবা নগরীর আখালিয়া নয়াবাজারস্থ একটি কলোনীতে থেকে মাটি কাটার কাজ করতেন। তার একমাত্র মেয়ে (১৩) আখালিয়া নয়াবাজারস্থ দারুল কোরআন একাডেমীতে ৪র্থ শ্রেণীতে পড়ে। একই শ্রেণিতে পড়ে আখালিয়া দামালী পাড়ার ধর্ষক মিলাদ আহমদের বোন।

সেই সূত্র ধরে নাবালিকা ওই মেয়ে মিলাদ আহমদের বোনের সাথে তার বাসায় যাওয়া আসা করতো। এক পর্যায়ে ৪র্থ ণ্রেণির ওই ছাত্রীর প্রতি কুনজর পড়ে আখালিয়া নতুন বাজারের মিলাদ লাইটিং এন্ড সাজঘরের ব্যবসায়ী মিলাদ আহমদের। মিলাদ প্রায়ই ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করতো। একপর্যায়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি রাতে মাটি শ্রমিক ওই বিধবা তার মেয়েকে ঘরে রেখে বাইরে কাজে চলে যান । এই সুয়োগে ও পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে লম্পট মিলাদ ওই মেয়েকে ডেকে তার দোকান মিলাদ লাইটিং এন্ড সাজঘরে নিয়ে যায় এবং জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। পরে তাকে বিয়ের প্রলোভনে ফুসলিয়ে প্রায়ই ধর্ষণ করতে থাকে। এক পর্যায়ে ঘাপলা বেঁধে যায়।

অন্তসত্ত্ব হয়ে পড়ে ওই ছাত্রী। শারীরিক পরিবর্তন দেখে মা তাকে জিজ্ঞেস করলে সে ঘটনা খোলে বলে। বর্তমানে ওই ছাত্রী প্রায় ৭ মাসের অন্তসত্ত্ব। এঘটনায় ছাত্রীর মা এলাকায় বিচারপ্রার্থী হলে ধর্ষক স্থানীয় হওয়ায় তিনি বিচার পাননি। বিচার না পেয়ে গত ২ আগস্ট এসএমপির জালালাবাদ থানায় গিয়ে লম্পট মিলাদ আহমদকে একমাত্র আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা নং-০৩(৮)২১ করেন। মামলার পর এলাকার প্রভাবশালীদের শেল্টারে থাকা ধর্ষক মিলাদ গ্রেফতার এড়িয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং বাদী ও ভিকটিমকে অপহরণ হত্যা ও গুম করার প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন মামলার বাদী ওই বিধাবা।

এ ব্যাপারে জালালাবাদ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল খাঁন জানান, প্রাথমিক তথ্যের সত্যতা পেয়ে মামলা রুজু করা হয়েছে। মামলার পর থেকে আসামী মিলাদ আত্মগোপনে চলে গেছে। তাকে গ্রেফতারে পুলিশের তল্লাশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo