বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০১:৫৩ অপরাহ্ন

সিলেটে সেই ‘লাইভ’ সাংবাদিক ফয়ছলের PK টিভি’র টোকেন বাণিজ্য

সিলেটে সেই ‘লাইভ’ সাংবাদিক ফয়ছলের PK টিভি’র টোকেন বাণিজ্য

sylhetlive24.com/সিলেট লাইভ
ইনসেটে-লাল বক্সে ‘PK টিভি’ বা ‘পৃথিবীর কথা’ ফেসবুক পেইজের স্টিকার লাগানো একটি অনটেস্ট সিএনজি অটোরিকশা।


বিশেষ প্রতিবেদক

সিলেটের শাহপরান থানাধীন সুরমা গেইট এলাকায় সড়ক পরিবহন আইন অমান্য করায় মোটর সাইকেল আটকের পর ট্রাফিক সার্জেন্টকে হুমকি-ধামকি দিয়ে ‘PK টিভি’ নামে ফেসবুক পেইজে লাইভের মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর কথিত সেই সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফয়ছল কাদিরের বিরুদ্ধে এবার চাঞ্চল্যকর তথ্য ভেসে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

তার ‘PK টিভি’ নামে ফেসবুক পেইজের প্রকৃত নাম হল ‘পৃথিবীর কথা’। কথিত সেই সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফয়ছল কাদিরের ‘PK টিভি’ বা ‘পৃথিবীর কথা’ ফেসবুক পেইজের এই স্টিকার সিলেটের কানাইঘাটের অসংখ্য অনটেস্ট সিএনজি অটোরিকশায় নামে ষ্টিকার লাগিয়ে চালকদের কাছ থেকে প্রতি গাড়ি বাবত ১৫ শত থেকে দুই হাজার টাকা মাসোয়ারা আদায় করতেন কথিত সেই সাংবাদিক। ‘PK টিভি’ বা ‘পৃথিবীর কথা’ এই স্টিকার লাগিয়ে সড়কে চলাচল করতো এসব অনটেস্ট সিএনজি অটোরিকশা।

কানাইঘাটের অনেক সিএনজি অটোরিকশা চালক জানিয়েছেন, ফয়সাল কাদিরকে মাসিক ২ হাজার টাকা প্রদান করলে সে সেই সব অনটেস্ট সিএনজি অটোরিকশা কানাইঘাট থেকে সিলেট শহর পর্যন্ত নিরাপদে চলাচলের নিশ্চয়তা দিতো।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কথিত সেই ‘লাইভ’ সাংবাদিক ফয়ছল কাদিরের সাথে পুলিশের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সম্পর্ক ভালো। দীর্ঘদিন ধরে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে এই ফয়সাল কাদির সিএনজি চালকদের কাছ থেকে মাসোয়ারার মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে আজ আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছেন।

অভিযোগ এসেছে এসব বিষয়ে কানাইঘাটের প্রকৃত সাংবাদিকরা তার এই অপকর্মের এবং তার সহযোগী কয়েকজন ভুঁইফোড় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেইজ ‘পিকে টিভি’ বা ‘পৃথিবীর কথা’র মত কানাইঘাটের সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে তথ্য সন্ত্রাসের আশ্রয় নেয় এবং হুমকিও দেয়। গেলো ঘটনায় ফয়সাল কাদিরের বিরুদ্ধে মূলধারার সাংবাদিকরা এবার ঐক্যবদ্ধ হয়ে আইনের আশ্রয় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

sylhetlive24.com/সিলেট লাইভ

সূত্র জানায়, কানাইঘাটে সাংবাদিকদের নাম ভাঙ্গিয়ে নাম্বার বিহীন অট্রেরিক্সা সিএনজি’র টোকেন বাণিজ্যের মুল হোতা সেই ‘লাইভ’ সাংবাদিক ফয়সাল কাদিরের বিরুদ্ধে কানাইঘাট থানায় অসংখ্য সাধারণ ডায়রী দায়ের করা রয়েছে।

গেল বছরের ১০ সেপ্টেম্বর কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সহ-সম্পাদক আব্দুন নুর, সদস্য আমিনুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, মুমিন রশিদ, সুজন চন্দ অনুপ, তার বিরুদ্ধে তথ্য সন্ত্রাসের অভিযোগ এনে পৃথক পৃথক জিডি করে রেখেছেন।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo