বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন

সিলেটে মোবাইলের চালান আটক : আ.লীগ নেতার ছেলেসহ গ্রেফতার ৩

সিলেটে মোবাইলের চালান আটক : আ.লীগ নেতার ছেলেসহ গ্রেফতার ৩

sylhetlive24.com/সিলেট লাইভ


সিলেট লাইভ ডেস্ক

জাফলংয়ে পরিবেশ ধ্বংসের নায়ক সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী এবার চোরাচালান ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে চোরাইপথে ভারত থেকে আনা ১’শ পিছ দামী মোবাইলসহ তার গাড়ি আটক করেছে শাহপরান থানা পুলিশ।

এসময় গাড়িতে থাকা লিয়াকত আলীর ছেলে জাফর সাদেক জয় আলী(২২), লিয়াকতের ভাই ইসমাঈল আলীর ছেলে আক্তার হোসেন (২২) ও গাড়ীর ড্রাইভার লিমন মিয়াকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ। লিয়াকতের ব্যবহৃত সিলভার কালারের প্রিমিও গাড়ী যার নং: ঢাকা মেট্রো-গ-২১-০৬৫০ আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়- লিয়াকত আলী চোরাইপথে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে ভারত থেকে আনা ১’শ পিছ দামী মোবাইল পাঠিয়েছিলেন ব্যবসায়ী শিপলুর কাছে। পথিমধ্যে তার গাড়ীটি আটক করে শাহপরান থানা পুলিশ। তল্লাশী করে পাওয়া যায় ১’শ দামী মোবাইল ফোন। যার আনুমানিক মূল্য ১২ লাখ ৫১ হাজার টাকা।

এ ঘটনায় আটককৃত তিনজনসহ ব্যবসায়ী শিপলুর বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা দায়ের করেছে। শাহপরান থানার মামলা নং-১০/ ১৫/০৪/২০২২ ইং। তাদের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-বি/২৫-ডি ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। সন্ধ্যায় গ্রেফতারকৃত ৩ জনকে আদালতে তোলা হলে আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরন করেন। তবে মামলায় আসামীর তালিকায় নেই লিয়াকত আলীর নাম। এজাহারে তার নাম উল্লেখ করে বলা হয়েছে- চোরাচালানে সহযোগীতা করেছেন লিয়াকত আলী।

জানা গেছে, জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে দুদকের অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলা চলছে, সরকারী সম্পত্তি জাল দলিল করে দখল করার অভিযোগে চার্জশীট দিয়েছে দুদক।

এসএমপি পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে লিয়াকত আলীর ছেলে জয় স্বীকার করেছে, লিয়াকত আলী তার গাড়ীতে করে এই তিনজনকে দিয়ে মোবাইল গুলো পাঠিয়েছেন সিলেট শহরের করিমউল্লাহ মার্কেটের এক মোবাইল ব্যবসায়ী শিপলুর কাছে হস্তান্তরের জন্য। পরে লিয়াকত আলী ও শিপলুকে ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু তাদের পাওয়া জায়নি।

মামলার বাদি শাহপরান থানার উপ-পরিদর্শক উত্তম রায় চৌধুরী তার দায়ের করা এজাহারে অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিলেট তামাবিল সড়কে বিশেষ চেকপোষ্ট করে গাড়ী তল্লাশী করার সময় ঢাকা মেট্রো-গ-২১-০৬৫০ নাম্বারের সিলভার রংয়ের প্রিমিও গাড়ীটিকে থামার জন্য সিগনাল দিলে তা অমান্য করে দ্রুত গতিতে সিলেট শহরের দিকে চলে যায়। পরে ধাওয়া করে গাড়িটিকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় গাড়ীতে থাকা জৈন্তাপুর উপজেলার বাউরবাগ এলাকার লিয়াকত আলীর ছেলে জাফর সাদেক জয় আলী(২২), লিয়াকতের ভাই ইসমাঈল আলীর ছেলে আক্তার হোসেন (২২) ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পাঠানটিলা এলাকার জমির আলীর ছেলে লিমন মিয়া(২৮) গাড়ীর ড্রাইভারকে আটক করা হয়। পরে স্থানীয় স্বাক্ষীদের সামনে গাড়ী তল্লাশী করে ভিভো, অপ্পো, রিয়েলমি, রেডমি, স্যামসাং ও পক্কো ব্রান্ডের ১’শ পিছ ভারতীয় মোবাইল পাওয়া যায়।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে মোবাইল সেট গুলো চোরাচালানে সহযোগীতা করেছেন লিয়াকত আলী নামের এক ব্যক্তি। তার সহযোগীতায় ব্যবসায়ী শিপলুর কাছে বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন আটকৃকতরা।

এ বিষয়ে শাহপরান থানার ওসি সৈয়দ আনিসুর রহমান জানান, চোরাচালাকৃত পন্যের মালিক হিসেবে আরো একজনকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে।

জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিতর্কিত লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে দির্ঘদিন ধরেই ভারতীয় ওষুধ ও মোবাইল চোরাচালানের অভিযোগ রয়েছে গোয়েন্দাসংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে। কিন্তু এই প্রথম তার চোরাচালানের পন্য ধরা পড়লো। লিয়াকত আলীর ঘনিষ্ঠজনদের দেয়া তথ্যে জানা যায়, তার ছেলে ভাতিজা সহ চোরাচালনকৃত মাল আটক ও ছেলে ভাতিজা গ্রেফতারের পর গভীর রাত পর্যন্ত জেলা আওয়ামী লীগের এক বড় নেতার বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন লিয়াকত আলী। সেখান থেকে চোরাচালানকৃত পন্য সহ ছেলে ভাতিজাকে ছাড়িয়ে নিতে নানা তদবির চালিয়েছেন । এসব বিষয়ে লিয়াকত আলীর সাথে কয়েকদফা যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo