বুধবার, ০৬ Jul ২০২২, ০১:১৩ অপরাহ্ন

সিলেটে কেয়ারটেকারের স্ত্রী ধর্ষণ, প্রবাসী গ্রেফতার

সিলেটে কেয়ারটেকারের স্ত্রী ধর্ষণ, প্রবাসী গ্রেফতার

sylhetlive24/সিলেট লাইভ


নিজস্ব প্রতিবেদক

সিলেটে কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ইংল্যান্ড প্রবাসী গ্রেফতার হয়েছেন। গত ২২ মে নগরীর মিরবক্সটুলা আজাদী-১ থেকে ওই প্রবাসীকে গ্রেফতার করে কোতোয়লী মডেল থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ওই প্রবাসীর স্ত্রীও পলাতক রয়েছেন। সিলেটে কোতোয়ালি মডেল থানায় দায়ের করা মামলা নং- {৪৯(৫)২২}। গ্রেফতারকৃত প্রবাসী আব্দুল মুনিম। তিনি জকিগঞ্জ উজেলার পইল গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে। বর্তমানে নগরীর মিরবক্সটুলা আজাদী-১ নিজের বাসায় থাকতেন। প্রবাসী আব্দুল মুনিমের স্ত্রী মুসলেহা খানম।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের জকিগঞ্জ উজেলার পইল গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিম। সস্ত্রীক নগরীর মিরবক্সটুলা আজাদী-১ নিজের বাসায় থকতেন। তিনি প্রায় ১০ বছর আগে জনৈক আব্দুল মালেককে তার বাসার কেয়ারটেকার নিযুক্ত করেন। কেয়ারটেকার স্ত্রীসহ ওই বাসায় বসবাস করতেন। বাসায় অবস্থানকালে কেয়ারটেকার দম্পতির এক মেয়ে সন্তানও জন্ম গ্রহণ করে।

এদিকে ইংল্যান্ড প্রবাসীর স্ত্রী মুসলেহা খানম ডায়াবেটিক রোগী হওয়ায় স্বামীর সঙ্গসুখ দিতে সম্পূর্ণ অপারগ। তাই কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে দিয়ে তার স্বামীর ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিমের শরীর ম্যাসেজ করাতেন। গোপনে ম্যাসেজের ছবি তুলে কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে ওই ছবি দেখিয়ে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখাতেন। পরে ভয় দেখিয়ে কেয়াটেকারে স্ত্রীকে তার স্বামী প্রবাসী আব্দুল মুমিনকে সঙ্গসুখ দিতে বাধ্য করতেন। প্রবাসী আব্দুল মুনিমও এই সুযোগে কেয়ারটেকারের স্ত্রীকে অবলীলায় ধর্ষণ ও ভোগ করতেন।

এক পর্যায়ে কেয়ারটেকার আব্দুল মালেক বিষয়টি টের পেয়ে যায়। পরে তার স্ত্রীকে তালাক দিয়ে সে চলে যায়। অপরদিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কেয়ারটেকারের তালাকপ্রাপ্তা ওই নারীকে অবলীলায় ভোগ করতে থাকেন প্রবাসী আব্দুল মুনিম। দেশ থেকে ইংল্যান্ড গিয়েও তার সাথে ভিজুয়্যাল অশ্লীল চ্যাটিংও করেন। সম্প্রতি আব্দুল মুমিন সস্ত্রীক দেশে ফিরলে তালাকপ্রাপ্তা ওই মহিলা তার বাসায় গিয়ে বিয়ের জন্য চাপ দিলে আব্দুল মুনিম ও তার স্ত্রী তাকে ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন।

এ ঘটনায় ওই মহিলা গত ২২মে সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় গিয়ে প্রবাসী আব্দুল মুনিম ও তার স্ত্রী মুসলেহা খানমকে আসামী করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় পুলিশ ইংল্যান্ড প্রবাসী আব্দুল মুনিমকে গ্রেফতার করে। পরে ৩ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার তাকে ফের জেল হাজতে পাঠায়। মামলার অপর আসামী ইংল্যান্ড প্রবাসী মুসলেহা খানম এখনো পলাতক।

মামলা ও রিমান্ডের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আলী মাহমুদ।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo