রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন

সরকারি নির্দেশনা :
করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে মাস্ক পরুন, নিরাপদ থাকুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। নিজে বাঁচুন এবং পরিবারকে সুস্থ রাখুন। সৌজন্যে : SylhetLive24.com
আজকের গুরুত্বপূর্ণ যত খবর
গোলাপগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনা, দাদা-নাতি নিহত রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সুনামগঞ্জ-ঢাকা বাস চলাচল বন্ধ সিলেটে বিদ্যুৎ বিভ্রাট : তীব্র গরমে দুর্ভোগে নগরীর কয়েক হাজার মানুষ সিসিকের ৮৩৯ কোটি টাকার বাজেট পেশ আশায় বুক বাঁধছেন হাফিজুল, পাশে দাঁড়াচ্ছেন হৃদয়বানরা শনিবার সিলেটের যেসব এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না পুলিশ এসল্ট মামলায় ছাত্রনেতা সুহেল কারাগারে সিলেটে সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক দিপনকে হুমকি বালুচরে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মামলা, আসামীরা অধরা সিলেটে ৮ ভূয়া সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা সিলেটে আবাসিক হোটেলে ফুর্তি, ধরা পড়লেন ১০ নারী-পুরুষ টিলাগাঁওয়ে পুলিশের অভিযান : ৪ জুয়াড়ি আটক ৭ দিনের মধ্যে অনিবন্ধিত সব অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ সিলেটে বিদ্যালয়ের মাঠে গ্রাসরুটস’র মেলা, বিপাকে কর্তৃপক্ষ জাফলংয়ে চলছে বালু লুটের মহোৎসব : নেপথ্যে জামাই সুমন চক্র সিলেটে চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণ মামলার আসামী মিলাদ গ্রেফতার সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা র‍্যাবের হাতে সেই ধর্ষক মিলাদ আটক ইউএসএ ছাত্রদল নেতা কয়েছকে বিদায় সংবর্ধনা অজি মো. কাওছারের পাশে লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন জাতীয়তাবাদী পরিবার
সিলেটে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ :  ফের মাঠে নামছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

সিলেটে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ :  ফের মাঠে নামছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

ফাইল ছবি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বিশ্বের অন্যান্য দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শেষে তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানতে শুরু করেছে। বিশেষ করে ইউরোপে। এসময়টাতে এসে বাংলাদেশে শুরু হয়েছে দ্বিতীয় ঢেউ। সিলেটসহ সারাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে প্রাণহানীর সংখ্যাও।

এ অবস্থায় সচেতনতার কোন বিকল্প না থাকলেও ওসবে পাত্তা দেওয়ার সময় নাই সাধারণ মানুষের। মাস্কবিহীন ঘোরাফেরা, মিছিল, বিয়ে, ওয়াজের নামে শ’ শ’ মানুষের সমাগম দেখে কেইবা বলবে যে- আমরা করোনাকে পাত্তা দিচ্ছি!

গত কয়েকদিন ধরেই সারাদেশের সাথে সিলেটেও বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্য নির্দেশনা পালনে ঢিলেমি চলে আসায় করোনার সংক্রমণ আবার বাড়ছে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। এ অবস্থায় মাস্ক পরা নিশ্চিতে সিলেটে ফের মাঠে নামছে প্রশাসন।

সিলেট জেলা ও সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, করোনার সংক্রমণ হার বেড়ে যাওয়ায় সরকারিভাবে আবারও দেশজুড়ে মাস্ক পরার বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে আবার অভিযান শুরু হবে। এবার কঠোরতা দেখাতে শুরুতেই মাস্কবিহীন চলাফেরা করা লোকদের আইনের আওতায় আনা হবে। এমনকি পূর্বের ন্যায় বসানো হবে ভ্রাম্যমাণ আদালতও।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিন কর্মসূচি দেশে শুরু হওয়ার পর সরকারের পক্ষ থেকে সকলকে মাস্ক ব্যবহারের কথা বলে আসা হচ্ছে। এর পরেও জনগণের মাস্ক পরায় অনাগ্রহ দেখা দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন সংশ্লিষ্টরা। তারা মনে করেন, মাস্ক ব্যবহার এবং স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবারও বাড়তে শুরু করেছে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে গত ১৩ মার্চ বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের চিঠি পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

উপসচিব মোহাম্মদ শাফায়াত মাহবুব চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের হার এবং মৃত্যুর হার গত কয়েক মাসের তুলনায় কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। সংক্রমণের হার রোধের জন্য সর্বক্ষেত্রে সবার মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিত করা প্রয়োজন। তাই সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করাসহ স্বাস্থ্যবিধি পালনের বিষয়টি মনিটরিং করতে বিভাগীয় কমিশনার, ডিসি ও ইউএনওদের অনুরোধ জানানো হয়েছে চিঠিতে।

এরপর থেকেই সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরায় বাধ্য করতে আরও কঠোর হওয়ার চিন্তা ভাবনা করছে জেলা প্রশাসন। তাদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধির অংশ হিসেবে মাস্ক পরা নিশ্চিত করাসহ চালানো হবে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সে ক্ষেত্রেও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত না করা গেলে বাড়বে জরিমানা, দেওয়া হবে জেল, এমন কঠোর নির্দেশনা রয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ক্ষেত্রে।

এ ব্যাপারে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ এম মাহফুজুর রহমান বলেন, সিলেটের জনগণের মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছি। একই সঙ্গে মাস্ক পরাতে সাধারণ মানুষের মধ্যে চালানো হচ্ছে নানা প্রচারণা ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম।

মাস্ক পরা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরও কঠোর হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে রক্ষায় সবাইকে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করতে এরই মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে আমাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, এরইমধ্যে আমরা সে মোতাবেক আরও কঠোর অবস্থানে যাব।

একই কথা বলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরীও। তিনি বলেন, বর্তমানে আমরা সিলেট মহানগর জুড়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছি। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সেই প্রচার প্রচারণা আরও বাড়ানো হবে। এছাড়া আমরা কয়েকদিনের মধ্যে নগরীতে মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে ও স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবো।

এ ব্যাপারে সিলেট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. আনিসুর রহমান বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে সিলেটের সর্বত্র মানুষের মধ্যে চরম উদাসীনতার কারণে ফের সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, এটা উদ্বেগজনক। তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বিকল্প নেই।

তিনি আরও বলেন, সংক্রমণ একটু কমেছে বলে সবাই স্বাধীনভাবে চলাফেরা করছি, যা মোটেই কাম্য নয়। বিশেষ করে পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে ব্যাপক জনসমাগমে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলায় চরম ঝুঁকি তৈরি করছে। এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত ও পারিবারিক সচেতনতা জরুরি। পাশাপাশি এ ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণার মাধ্যমে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে বলেও তিনি মনে করেন।

সিলেটের জেলা প্রশাসনের এডিসি ( সার্বিক) আ ন ম বদরুদ্দোজা বলেছেন, আমরা নানাভাবে কাজ করছি। মাঠে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে চলছে প্রচার। কয়েক দিনের মধ্যেই জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নামবে। স্বাস্থ্যবিধি মানাতে বাধ্য করবে।

সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রস্তুতি সম্পর্কে বলতে গিয়ে উপপরিচালক ডাক্তার হিমাংশু লাল রায় জানান, করোনা রোগীদের চিকিৎসা ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনের জন্য এ হাসপাতালে ২শ’ শয্যা প্রস্তুত।

তিনি জানান, শহীদ শামসুদ্দিন হাসাপাতালেও তাদের প্রস্তুতকৃত করোনা বেডের মধ্যে তিন ভাগের প্রায় দুই ভাগ খালি। সুতরাং কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। অন্যান্য বিষয়েও তাদের প্রস্তুতি রয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর সিলেটের সহকারি উপপরিচালক ডাক্তার আনিসুর রহমান জানান, ওসামানী মেডিকেল কলেজ ও শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের পাশাপাশি আইসোলেশনের জন্য তারা আগের নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি- বেসরকারি অন্যান্য হাসপাতালগুলোকেও প্রস্তুত রেখেছেন। সেগুলো হচ্ছে নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল ও খাদিমনগররের হযরত শাপরাণ (রাহ,) হাসপাতাল।

এদিকে করোনা সচেতনতামূলক কাজে মাঠে নেমে পড়েছে এসএমপি ও সিলেট জেলা পুলিশ। তারা মাস্ক বিতরণের পাশাপাশি পথসভার মাধ্যম সচেতনতা কার্যক্রম শুরু করেছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web-NEST- BD
ThemesBazar-Jowfhowo