সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন

সিলেটের ৪ মানব পাচারকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, হত্যার হুমকি!

সিলেটের ৪ মানব পাচারকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, হত্যার হুমকি!

pic by internet
প্রতিকি


সিলেট লাইভ ডেস্ক :: গ্রীস থেকে ফ্রান্সে পাঠানোর নামে টাকা আত্মসাৎ, শারিরীক নির্যাতনের ঘটনায় সিলেটের ৪ মানবপাচারকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবরে অভিযোগ দাযের করেছেন এক ভুক্তভোগী। ভুক্তভোগী সেলিম আহমদ সেলু গোলাপগঞ্জ থানার দড়া গ্রামের আব্দুন নুরের ছেলে। ১৪ জানুয়ারি তিনি অভিযোগ প্রেরণ করেন।

অভিযোগের অনুলিপি তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, র‌্যাব-৯ ও এসএমপি পুলিশ কমিশনার বরাবরেও দাখিল করেছেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, তাঁর ভাই শরীফ আহমদ কলিম গ্রীসে অবৈধ বসবাস করছে। গ্রীসে বসবাসকালে দক্ষিণ সুরমার বলদী গ্রামের সাব্বির আহমদের পুত্র তানভীর আহমদ শুভর সাথে পরিচয় হয়। শুভ গ্রীস থেকে ফ্রান্স লোকজন পাঠায় বলে জানায়। শুভর কাছে কথা বলে ৪ লক্ষ টাকা ধার্য্য করে গ্রীস থেকে ফ্রান্স নেয়ার জন্য মৌখিক চুক্তি হয় তাদের। শরীফের সাথে তার আরো ৩ বন্ধু দেলোয়ার হোসেন, কলিম রাজ ও মাসুম চুক্তিবদ্ধ হন।

গ্রীসে বসবাসকারী ছাতকের ভাদেশ^র বড়কাপন গ্রামের আব্দুল কাদিরের পুত্র ফখর উদ্দিনকে মাধ্যম রেখে তার কাছে টাকা জমা রাখার জন্য সাব্যস্থ করা হয়। ফখর উদ্দিনের গ্রীসে একটি বড় দোকান থাকার সুবাধে তিনি সহজে মানবপাচার করতে পারেন। চুক্তি শেষে শুভ ও ফখরের কথা মতো শরীফ আহমদ কলিমের ভাই অভিযোগকারী সেলিম আহমদ সেলু দেশে থাকা ফখর উদ্দিনের আপন ভাই শাহনেওয়াজের কাছে ৬ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা জমা দেন। যার একাউন্ট নং- নেওয়া ফিসারিজ, পূবালী ব্যাংক লি. জাউয়া বাজার শাখা, ছাতক, নং- ৩০৯৬৯০১০১৯০৩০। এরপর বিশ্বনাথের আলতাব হোসেন তার ভাই ইকবাল হোসেন ও চাচাতো ভাই সফর আলীর জন্য শাহনেওয়াজের একাউন্টে আরো ৯ লক্ষ ১০ হাজার ও শাহনেওয়াজের আত্মীয় সালমা বেগমের একাউন্টে (উত্তরা ব্যাংক, বিয়ানীবাজার শাখা, নং- ০০১১১০০১১৭৮৪২) আরো সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা জমা দেন।

টাকা গ্রহণের পর মানবপাচারকারী তানভীর আহমদ শুভ ও ফখর উদ্দিন তাদের গ্রীস থেকে ফ্রান্সে পাঠাতে পারেননি। শুভর সাথে ভুক্তভোগরীরা যোগাযোগ করলে তাদেরকে গ্রীসে একটি ঘরের মধ্যে আটকে রেখে শারিরীক নির্যাতন করতে থাকে। এসব ঘটনা শুনে অভিযোগকারী সেলিম আহমদ সেলু সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিকের স্বরণাপন্ন হন। এমপি মানিক স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের বিষয়টি সমাধান করার নির্দেশ দেন। কিন্তু চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের কাছে শাহনেওয়াজ টাকা কথা অস্বীকার করে। পরে শুভর বাড়িতে গেলে তার ভাই রাজবীর আহমদ শেখর প্রাণে হত্যার হুমকি-ধমকি দিয় তাড়িয়ে দেয়।

পরে সেলিম আহমদ সেলু জানতে পারেন, গ্রীসে থাকা তানভীর আহমদ শুভ ও ফখর উদ্দিন এবং দেশে থাকা শাহনেওয়াজ ও রাজবীর আহমদ শেখর মানবপাচারকারী সদস্য। শুভর পিতা সাব্বির আহমদ একজন মানবপাচারী সদস্য। শেখরকে একবার র‌্যাব গ্রেপ্তারও করে। তারা এভাবে লোকজনকে ফ্রান্সে নেওয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাৎ করে আসছে।

টাকা উদ্ধারসহ এসব মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তিনি এ অভিযোগ দায়ের করেন।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web-NEST- BD
ThemesBazar-Jowfhowo