শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৬:০৭ পূর্বাহ্ন

সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখে দিতে যুবকদের ইসলামী জ্ঞান অর্জন করতে হবে

সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখে দিতে যুবকদের ইসলামী জ্ঞান অর্জন করতে হবে

sylhetlive24.com


সিলেট লাইভ ডেস্ক

দৈনিক শ্যামল সিলেটের সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এডভোকেট সামসুজ্জামান জামান বলেছেন, দেশে উশৃঙ্খল করার লক্ষ্যে একটি পক্ষ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা করার চেষ্টা করছে। এদেরকে রুখে দিতে হবে। সব ধরণের সাম্প্রদায়িক অপশক্তি রুখে দিতে যুবকের ইসলামী জ্ঞান অর্জন করতে হবে। সঠিক ইসলামী জ্ঞানের মাধ্যমেই সাম্প্রদায়িকতা দূর করা সম্ভব। গতকাল শুক্রবার গোয়াইনঘাটের পশ্চিম জাফলংয়ে নাগরিক সম্প্রীতির জন্য শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, সাম্প্রদায়িকতা এখন ধর্মীয় কোন ইস্যু নয়, এটা রাজনৈতিক ইস্যুতে রূপ নিয়েছে। দেশে উশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার লক্ষ্যে এই চক্র এ কাজ করে থাকে। তাই সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে দেশ সবার। তাই সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সাম্প্রদায়িকতা রূখে দিতে হবে।

সামসুজ্জামান বলেন, বিশ্বের প্রথম সংবিধান হলো মদিনা সনদ। যে সনদের প্রণেতা হলেন আমাদের প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (স.)। তিনি ৪৬টি মতান্তরে ৪৭টি ধারার মাধ্যমে সুষ্পষ্ট একটি সংবিধান উল্লেখ করে গেছেন। যাতে স্পষ্ঠ বলা হয়েছে, অন্যান্য ধর্মাবলম্ভীদেরও সম্মান করতে হবে। একটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ট রাষ্ট্রে তারাও যেন স্ত্রী-সন্তান নিয়ে শান্তিতে-নির্ভয়ে থাকতে পারে সে ব্যবস্থাও করতে হবে। বিদায় হজ্বের ভাষনেও নবী (স.) বলেছেন, তোমরা ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করোনা। অথচ আমাদের দেশে ধর্মকে ব্যবহার করে জাতীয় ইস্যু সৃষ্টি করা হয়। মিছিল মিটিং বের করে নিরীহ মানুষদের জেল-জুলুম কাটতে হয়।

তিনি আরো বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। তরবারির জোরে কখনো ইসলাম প্রতিষ্ঠা হয়নি। তায়েফের ময়দানে যখন মহানবী (স.) কে পাথর নিক্ষেপ করে রক্তাক্ত করা হয়, তখন আল্লাহ তায়ালা জিবরাইল (আ.) পাঠিয়ে বললেন, যাও গিয়ে বলো- যদি নবী চান তায়েফবাসীদের মাটির সাথে মিশিয়ে দিবো। তখন নবী (স.) মুচকি হেসে বলেছিলেন, তায়েফবাসীরা বুঝেনি, তাই আমার উপর হামলা করেছে। এরাই একদিন ইসলামের পতাকা উড্ডীন করবে। মক্কা বিজয়ের সময় তিনি সবাইকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষনা করেছিলেন। মানুষকে ভালবাসা ও ইসলামের আলো দেখিয়ে ইসলামের পথে এনেছিলেন।

সবাইকে জ্ঞান অর্জন করতে হবে উল্লেখ করে সামসুজ্জামান জামান বলেন, কুরআনের প্রথম নাজিল হওয়া বানী হলো- ইক্বরা, অর্থাৎ পড়। তাই সবাইকে ইসলামের সঠিক জ্ঞান অর্জন করতে হবে। সবাইকে কোরআনের প্রতিটি বাণী অন্তরে লালন করতে হবে। তাতেই দেশে সাম্প্রদায়িকতা রোধ করা সম্ভব।

কুমিল্লায় হনুমানের হাটুর উপরে মহাগ্রন্থ আল-কোরআন রাখার ব্যাপারে তিনি বলেন, কোরআন শরীফ একটি পবিত্র গ্রন্থ। ১৫’শ বছর আগে এ গ্রন্থ নাজিল করা হয়েছিল মানবজাতীর হেদায়াতের জন্য। এ গ্রন্থ নাজিলের পর আল্লাহ তায়ালা বলেছিলেন, নিশ্চয়ই আমি পবিত্র কুরআন নাযিল করেছি, আর আমিই তার হেফাজতকারী। তাই শুরু থেকে নমরুদ, হাম্মান, সাদ্দাদ, আবু জাহেল, আবু লাহাব সহ বড় বড় কাফের-মুশরিকরা শত চেষ্টা করেও কোরআনের একটি হরফও পরিবর্তন করতে পারেনি। বর্তমানেও পারবে না। তবে, কেউ যেন এরকম ইস্যু নিয়ে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটায় তাতে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

বাংলাদেশ স্টুডেন্ট ইউনিটির আহ্বায়ক বদরুল আজাদ রানার সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট সমাজসেবক জাবেদ আহমদ, সাংবাদিক আবু বক্কর, ছাত্রনেতা রানা, সাংবাদিক আজমল আলী, রিয়াজ আহমদ, শামীম আহমদ। এছাড়াও এলাকার প্রায় সহগ্রাধিক সচেতন মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

sylhetlive24.com






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY SYLHET-LIVE-24
ThemesBazar-Jowfhowo