সোমবার, ০৪ Jul ২০২২, ১২:০২ পূর্বাহ্ন

দক্ষিণ সুরমার ক্রাইম স্পট : প্রকাশ্যে জুয়া ও দেহ ব্যবসা

দক্ষিণ সুরমার ক্রাইম স্পট : প্রকাশ্যে জুয়া ও দেহ ব্যবসা

sylhetlive24/সিলেট লাইভ


বিশেষ প্রতিবেদক

দক্ষিণ সুরমায় অপরাধ প্রবণতা দিন-দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর মধ্যে একাধিক তীর জুয়াসহ নানান অপরাধের ক্রাইম স্পট হিসেবে গড়ে উঠছে। যার ফলে উঠতি বয়সের স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছেলেরা অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা মাঝে মাঝে এসব ক্রাইম স্পটে অভিযান চালালেও মুল অপরাধীরা থেকে যায় আড়ালে।

দক্ষিণ সুরমার চাঁদনীঘাট এলাকায় ক্বিন ব্রীজের নিচে প্রকাশ্যে জুয়া চললেও প্রশাসন অদৃশ্য কারনে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। যে কারনে ধ্বংসের পথে যুবসমাজ। এমনটাই অভিযোগ করেছেন চাঁদনীঘাটের স্থানীয় বাসিন্দা নজমুল ইসলাম।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমরা অত্র এলাকার স্থায়ী বাসিন্দারা আজ জিম্মি হয়ে পরেছি একটি চক্রের কাছে। তাদের বিরুদ্ধে স্থানীয় কাউন্সিলরসহ প্রশাসনও কোনো বিহিত নিচ্ছেনা। এই এলাকার একসময়ে অনেক সুনাম ছিলো। কিন্তু আজ জুয়া এবং দেহ ব্যবসার কারনে আমাদের সাথে কেউ আত্মীয়তাও করতে চায়না। এই এলাকায় নাকি নানা ধরনের অপরাধ কর্মকাণ্ড চলে। তবে কোনো স্থানীয় বাসিন্দা এসব করছে না। বহিরাগত কিছু লোক এসে আমাদের এলাকার সুনাম আজ ক্ষুন্ন করছে।

এই এলাকাকে অপরাধের স্বর্গরাজ্যে পরিনত করেছে মাদক ব্যবসায়ী ও জুয়াড়ি তাহের এবং দেহ ব্যবসয়ী রত্না। তারা প্রকাশ্য দিবালোকে জুয়া, মাদক ও পতিতালয় খুলে অসামাজিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। তবে অদৃশ্য কারনে এতে নজর পড়ছে না প্রশাসনের।

sylhetlive24/সিলেট লাইভ

বুধবার রাতে ক্বিন ব্রীজের নিচে প্রকাশ্যে চলছে ভারতীয় তীর শিলং জুয়া, টিকটিকি ও জান্ডুমান্ডু জুয়া। লাল বক্সে ইনসেটে তাহের মিয়ার ফাইল ছবি।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক যুবক জানান, ক্বিন ব্রীজ এলাকায় ছিনতাই ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়িতে চুরি হয় জুয়ার টাকা যোগাড়ের জন্য। ক্বিন ব্রীজের ঠিক নিচে এবং নিচের কলোনিতে চলে জুয়াড়ী তাহেরর জুয়ার বোর্ড। প্রকাশ্যে চলে ভারতীয় তীর শিলং জুয়া, টিকটিকি ও জান্ডুমান্ডু জুয়া। সে এই এলাকায় জুয়ার সাথে মাদক ও অসামাজিক কর্মকান্ডও করে। পাশেই চলে রত্নার পতিতালয়। ১০/১২ জন যুবতী কলোনীর কয়েকটি রুমে রেখেই চলে রত্নার এই অবৈধ ব্যবসা। জুয়ার বোর্ডে আসা অনেক যুবকদের রত্নার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয় তাহের। বিনিময়ে একটা পার্সেন্টেজ পায় সে। এটা অবশ্য তাহেরের এক্সট্রা বানিজ্য। দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকায় জুয়ার আসর পরিচালনা করলেও তাহেরের জুয়ার বোর্ডে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো অভিযান হয়না। শুনেছি তাহের প্রশাসনের উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তাকে মোটা অংকের বখরা দেয়। এছাড়া স্থানীয় দক্ষিণ সুরমার ক’জন সংবাদকর্মীর মাধ্যমে সিলেটের আঞ্চলিক পত্রিকায়ও সাপ্তাহিক টাকা পাঠায়, যে কারণে তাহের এবং রত্নার বিরুদ্ধে কেউই কোনো কিছু লিখে না।

জানা গেছে, বড়ইকান্দি এলাকার ১নং রোডের রুটিওয়ালা বাড়ির সমছু মিয়ার ছেলে তাহের মিয়া। এবং রত্না একনামে পরিচিত ওই এলাকার দেহ ব্যবসায়ী হিসেবে। ওরা একাধিক বার গ্রেফতার হলেও, আইনের ফাঁকফোকরের মাধ্যমে বেরিয়ে আবার তাদের ব্যবসা শুরু করে। তাহেরের বিরুদ্ধে সিলেটের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলাও রয়েছে।

তাহেরের অপরাধের এই স্বর্গরাজ্যে দিনে এবং রাতে প্রকাশ্যে চলে একাদিক জুয়ার আসর। আর মাদক বিক্রি।

শনিবার দুপুর সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ক্বিন ব্রীজের নিচে প্রকাশ্যে চলছে ভারতীয় তীর শিলং জুয়া, টিকটিকি ও জান্ডুমান্ডু জুয়া। জুয়াড়িদের বেশামাল আড্ডাবাজি, জুয়ার পাশাপাশি বসেছে মাদকের আসরও। পাশে দাঁড়িয়ে খদ্দরদের সাথে আলাপ করছে তাহের ও রত্না। এছাড়া এলাকার উঠতি বয়সের যুবকেরাও জান্ডুমান্ডু খেলছেন।

জুয়ার টাকায় তাহের এতটাই বেপরোয়া হয়েছে যে সিসিকের সিমানার গ্রীল কেটে রাস্তা তৈরী করেছে তার জুয়ার বোর্ডে যাতায়াতের জন্য। এছাড়াও এই এলাকায় নদীর পাড় দখল করে বাড়িও নির্মান করছে তাহের।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, জুয়াড়ী তাহের এবং রত্নার খপ্পরে পরে ধ্বংস হচ্ছে যুবসমাজ। এলাকার স্কুল-কলেজের ছাত্র, দিনমজুর, রিকশাচালক ও শ্রমিকসহ বেকার যুবকরা ধ্বংসের পথে। আমরা স্থানীয়রা তাহের এবং রত্নার এসব অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা চাচ্ছি।

একটি সূত্র জানিয়েছে, সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকা, ফল মার্কেটের সামন, যমুনা মার্কেট, চাঁদনীঘাট মাছবাজার, দরিয়াশাহ (র.) মাজার সংলগ্ন এলাকা, নতুন রেলওয়ে স্টেশন, ভার্থখলা নছিবা খাতুন স্কুলের গলিসহ এসব এলাকায় রয়েছে জুয়ার আসর। দীর্ঘদিন ধরে তাহের এসব জুয়ার আসর নিয়ন্ত্রণ করে আসছে।

অনুসন্ধানে তাহের মিয়া প্রতিবেদককে অর্থের লোভ দেখান এবং হুমকি দেন। তাহের মিয়া বলেন, এসব লিখলে আমার কিছুই হবে না। আমি এই এলাকার সিনিয়র সাংবাদিকদের এবং প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মেনেজ করেই এসব করছি। অযথা বারাবাড়ি করবেন না।






© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বস্বত্ব SylhetLive24.Com কর্তৃক সংরক্ষিত ।

Design BY Web Nest BD
ThemesBazar-Jowfhowo